ডিজিটাল মার্কেটিং কি?। কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন?

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?। কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন?

আসসালামুআলাইকুম।  Blog Academy  এর পক্ষ থেকে আপনাকে জানাই স্বাগতম। ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন? এই বিষয়ে আজ আলোচনা করব। সময় এবং যুগে, ইন্টারনেট ছাড়া একটি উন্নত  পৃথিবী কল্পনা করা যাবেনা।  

সারা বিশ্বে 4.5 বিলিয়নেরও বেশি সক্রিয় ব্যবহারকারীদের, নানান ওয়েব তথ্য ভাগাভাগি এবং প্রচারের প্রধান কেন্দ্র হয়ে উঠেছে  ইন্টারনেট। অনলাইন জগতের এই রূপান্তরটি ব্যবসায়ীরা তাদের পণ্য এবং পরিষেবাগুলিকে প্রচার করার উপায় হিসেবে ব্যবহার করেছে ৷

বিপণন সবসময় সঠিক জায়গায় এবং সঠিক সময়ে সঠিক ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সাথে সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে করা হয়। এর অর্থ হল আপনার তাদের সাথে দেখা করতে হবে, যেখানে তারা ইতিমধ্যে সময় কাটাচ্ছে। যেমন; বিভিন্ন ইন্টারনেট মাধ্যম ইউটিউব , ফেসবুক, টুইটার, ইমেল, ইত্যাদি। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাথে প্রথাগত বিপণনের মতো কিছু একই নীতি জড়িত । এবং বেশির ভাগ কোম্পানি গুলো  গ্রাহকদের কাছে যাওয়ার এবং তাদের আচরণ বোঝার জন্য একটি নতুন উপায় হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং প্লাটফর্ম গুলো ব্যবহার করছে । কোম্পানিগুলি প্রায়ই তাদের কৌশলে  ঐতিহ্যগত প্রথার সাথে এবং ডিজিটাল বিপণন কৌশলগুলিকে একত্রিত করছে।

এই ব্লগে, আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং কী এবং কীভাবে আপনি আপনার ব্র্যান্ডের প্রচার করতে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করবেন তা নিয়ে আলোচনা করব। 

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

 

সাধারনভাবে মার্কেটিং অর্থ প্রচার প্রচারণা। কোন প্রোডাক্ট বা পণ্য বা সেবা সম্পর্কে জনসাধারণের কাছে  অবহিত করাকেই মার্কেটিং বলে। অন্যদিকে ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে, ডিজিটাল মিডিয়া বা ডিজিটাল মাধ্যমকে ব্যাবহার করে অনলাইন/ইন্টারনেট এর মাধ্যমে পণ্যের বা সেবার প্রচার বা প্রচারণার প্রক্রিয়া। 

উদাহরনঃ ইমেইল মার্কেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ওয়েব-ভিত্তিক বিজ্ঞাপন, SEO মার্কেটিং ইত্যাদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর জনপ্রিয় উদাহরণ

 

কেন করবেন ডিজিটাল মার্কেটিং ?

 

এতক্ষণ আমরা জানলাম ডিজিটাল মার্কেটিং কি ? এবার আমরা জানবো কি কারনে ডিজিটাল মার্কেটিং আমরা করবো। আধুনিক যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ । প্রযুক্তির কল্যাণে এখন মানুষ অনলাইন/ইন্টারনেট এর মাধ্যমে পণ্যের বা সেবার প্রচার বা প্রচারণার কাজ পরিচালনা করছে।

এক্ষেত্রে যেমন সময় বাঁচে তেমনি প্রোডাক্টটিভিটি বৃদ্ধি পায়। বর্তমান যুগে “ডিজিটাল মার্কেটিং” কি আপনি যদি তা না জেনে থাকেন তাহলে আপনি অনেকটা পিছিয়ে পরে আছেন। আপনি যদি কোন ব্যবসা বাণিজ্যের সাথে জড়িত থাকেন বা ভবিষ্যতে যুক্ত হবেন এ রকম সম্ভাবনা থাকে তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে নেওয়াটা আপনার জন্য জরুরী।

 ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটা ছোট উদাহরণ দেই। যেমনঃ আপনি যখন আপনার ফোনে বিনোদনের জন্য মাঝে মাঝে ভিডিও দেখেন তখন আপনার সামনে হঠাৎ করেই বিভিন্ন বিজ্ঞাপন শো করে। এই মার্কেটিং টি হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি পদ্ধতি।

নিজের বিজনেসকে অনেক দূর এগিয়ে নিতে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভূমিকাঃ

 

 

যেকোনো বিজনেসকে এগিয়ে নিতে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভূমিকা অপরিসীম। এটি  শিখে আপনি আপনার বিজনেসকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন এতে কোন সন্দেহ নেই। ব্যবসায় দ্রুত সফলতা পেতে ডিজিটাল মার্কেটিং কি এটা  জানা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

কোনো প্রোডাক্ট (Product) বা পণ্য বা সেবা মার্কেটিং বা প্রচার-প্রচারণা করার জন্য মানুষের ঘরে ঘরে বা দোকানে দোকানে যেতে পারি এমন দিন এখন নেই বললেই চলে। এগুলো মার্কেটিং এর পুরাতন বা গতানুগতিক পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে সময় অনেক অপচয় হয়। এর পাশাপাশি পণ্যের প্রচার বা প্রচারণার জন্য অনেক টাকা খরচ করতে হয়।

আর সব থেকে বড় সমস্যা হল এই পুরাতন বা গতানুগতিক পদ্ধতিতে অধিক মানুষের কাছে পণ্যের মার্কেটিং করা সম্ভব হয় না। এজন্যই মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে।  প্রযুক্তির কল্যাণেই এটা সম্ভব হয়েছে। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আমরা ঘরে বসেই কিছু সময়ের মধ্যে অধিক সংখ্যক নির্দিষ্ট অডিয়েন্সের কাছে আমাদের প্রোডাক্ট বা পণ্যের মার্কেটিং করতে পারি।

 

কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন?

 

 

এটি এমন একটি অনলাইন-ভিত্তিক যুগ যেখানে বেশিরভাগ কেনাকাটা অনলাইনে করা হয়। সারা বিশ্বের ব্যবসাগুলি বিলবোর্ড বিজ্ঞাপন থেকে ডিজিটাল বিজ্ঞাপনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন নিয়ে আসেছে ৷ ডিজিটাল মার্কেটিং শুধুমাত্র একটি ট্রেন্ডিং মার্কেটিং টুল নয়। এটি এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত মার্কেটিং এর সবচেয়ে কার্যকরী ফর্ম হিসেবে বিবেচিত হয়। এবং এর ফলাফল অত্যন্ত  দৃশ্যমান। 

ডিজিটাল মার্কেটিং-এর সাহায্যে, ব্যবসাগুলি বিপণনের সীমাবদ্ধতা গুলিকে অতিক্রম করেছে এবং অনলাইন লিডগুলি থেকে প্রচুর মুনাফা অর্জন করেছে ৷ ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য অনেকগুলো পদ্ধতি রয়েছে। তবে এমন কিছু পদ্ধতি রয়েছে যেগুলো আমাদের ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তো চলুন আজকে আমরা জেনে নেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর যে বিষয়গুলো সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় সেগুলো সম্পর্কে। এগুলো হচ্ছেঃ

 

  • সার্চ ইঞ্জিন আপটিমাইজেশন (SEO) 
  • সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM)
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (SMM)
  • কনটেন্ট মার্কেটিং (CM)
  • ডিসপ্লে অ্যাডভার্টাইজিং(DA)
  • ইমেইল মার্কেটিং (EM)
  • মোবাইল মার্কেটিং (MM)
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং (AM)

 

সার্চ ইঞ্জিন আপটিমাইজেশন (SEO) 

 

 

সার্চ ইঞ্জিন আপটিমাইজেশন (SEO) 
সার্চ ইঞ্জিন

 

প্রতিবার যখন আপনার কিছু জানার বা কেনার প্রয়োজন হয়, আপনি প্রথম যে কাজটি করেন তা হল Google সার্চ ইঞ্জিনে অনুসন্ধান করেন। যখন ফলাফল সামনে আসে তখন একজন ভোক্তা সাধারণত গুগল অনুসন্ধানের ফলাফল প্রথম বা দ্বিতীয় পৃষ্ঠায় যা খুঁজছেন তা খুঁজে পান। 

সেখানেই এসইও কাজ করে। আপনার ওয়েবসাইটকে এসইও বান্ধব করা ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। আপনার ওয়েবসাইটকে সার্চ ইঞ্জিন বান্ধব হওয়ার জন্য অপ্টিমাইজ না করলে, আপনি অনুসন্ধানে পিছিয়ে থাকবেন। এবং সম্ভাব্য লিড এবং আপনার ব্যবসার এক্সপোজার দখল করার সুযোগ মিস করবেন। 

আপনার ওয়েবসাইটে  ট্র্যাফিক তৈরি করতে সময়, প্রচেষ্টা এবং ধৈর্য লাগে । তবে আপনি যদি গুগল সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পৃষ্ঠায় উপস্থিত হওয়ার জন্য অর্থ প্রদান করতে না চান, তাহলে এসইও হল প্রথম পৃষ্ঠায় যাওয়ার সহজ উপায়। SEO বাস্তবায়ন করতে পাড়লে বিনামূল্যে এবং সময়ের সাথে ধীরে ধীরে সাইটের ট্রাফিক বাড়ায়।  

SEO আবার ২ প্রকার যথা :

  • On Page SEO
  • Off Page SEO

আপনি আপনার ওয়েবসাইট সম্পর্কে যা কিছু বলেন তা On Page SEO আর অন্যরা আপনার  ওয়েবসাইট সম্পর্কে যা কিছু বলে Off Page SEO নামে পরিচিত।

 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM)

 

 

এসিএম(SEM) বা সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বলতে  এমন এক  প্রক্রিয়া কে  বুঝি যার মাধ্যমে আমরা কোন সার্চ ইঞ্জিনে পেইড এডভার্টাইজিং এর মাধ্যমে টাকার বিনিময়ে এড ক্যাম্পেইন পরিচালনা করে আমাদের ওয়েবসাইট বা ওয়েব কন্টেন্ট এর যে কোনো কিওয়ার্ড কে টপ পেজে শো বা রেংক করাতে পারি। 

মনে করেন, আপনার একটি অনলাইন দোকান বা ওয়েবসাইট আছে। যেটিকে আপনি খুব সহজে আনলাইনে রেংক বা সেল করাতে চান SEO এর মাধ্যমে করলে হয়তো সময় লাগবে, কিন্তু আপনি দ্রুত করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনি অল্প কিছু টাকা খরচ করে অতি দ্রুত  সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে খুব সহজেই রেংক করাতে পারেন।

এই SEM পক্রিয়ায় মার্কেটিং করে দ্রুত এবং ইন্সট্যান্টলি আপনার পণ্যগুলো সেল করতে এবং রেংক করতে পারলে তা অনেক  লাভজনক হবে আপনার জন্য।

 

 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM)
SEM মার্কেটিং

 

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (SMM)

 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে চলমান এবং কার্যকরী ফর্মগুলির মধ্যে একটি হল সোশ্যাল মিডিয়া। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবসার মার্কেটিং এর টেবিলে যে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছে তা অতুলনীয়।

সারা বিশ্বে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের দিন দিন সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে যার সাথে,  আপনার ব্যবসা কতটা এক্সপোজার পেতে পারে তা চিন্তার বিষয়। এবং সমস্ত ভোক্তার আচরণগত ডেটা সহ, আপনি সফল মার্কেটিং এর জন্য ডার্টা গুলিকে মুছে ফেলতে  চাইবেন না। 

সোশ্যাল মিডিয়া হল আপনার পণ্য এবং পরিষেবাগুলি সম্পর্কে প্রচার করার জন্য আপনার গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম । যখন আপনার সম্ভাব্য গ্রাহকদের সাথে একটি প্ল্যাটফর্মে যোগাযোগ করা হয় , যেখানে তারা তাদের বেশিরভাগ সময় ব্যয় করে।   

গ্রাহক পরিষেবা প্রদান ছাড়াও, আপনি বিজ্ঞাপন প্রচার, প্রতিযোগিতা, সৃজনশীল এবং আকর্ষনীয় বিভিন্ন  সামগ্রী তৈরি করতে এবং এমনকি ভাইরাল হতে  সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করতে পারেন। যেমন; বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যম  Youtube , Facebook, Twitter, Linkedin, Instagram  ইত্যাদি অনেক জনপ্রিয়।

 

 

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (SMM)
সোশ্যাল মিডিয়া

 

 

কনটেন্ট মার্কেটিং (CM)

 

কন্টেন্ট মার্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিং জগতে একটি মূল্যবান জায়গা দখল করেছে।  আপনার যে অনলাইন বিপণন কৌশলই থাকুক না কেন, কন্টেন্ট মার্কেটিং ছাড়া আপনি গ্রাহক বেস, ব্র্যান্ড তৈরি করতে এবং আপনার ব্যবসার প্রতি যাদের আগ্রহ আছে এমন  টার্গেট ভক্তা বা শ্রোতাদের সহজে সনাক্ত করতে পারবেন না। 

মূলত, কন্টেন্ট মার্কেটিং হল আপনার গ্রাহকদের সাথে ইন্টারঅ্যাক্ট করার মাধ্যমে এবং তাদের ক্রয় করতে রাজি করানোর মাধ্যমে আপনার ব্যবসার প্রচার করা। কন্টেন্ট মার্কেটিং কিছু রূপ হল: ভিডিও, প্রশংসাপত্র, ইবুক, পডকাস্ট, ইনফোগ্রাফিক্স, ব্লগ পোস্ট, সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট এবং বিভিন্ন লিস্টিং। 

এই সবগুলি আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং প্রচারের একটি অংশ হতে অবদান রাখতে পারে । যা ব্যবসা সম্পর্কে গ্রাহকদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে সহায়তা করে।

 

 

কনটেন্ট মার্কেটিং (CM)
কনটেন্ট মার্কেটিং (CM)

 

 

ডিসপ্লে অ্যাডভার্টাইজিং(DA)

 

 

ডিসপ্লে অ্যাডভার্টাইজিং বলতে  Google ডিসপ্লে নেটওয়ার্ক এবং Facebook ইত্যাদির মতো জনপ্রিয়  প্রকাশক ওয়েবসাইটের নেটওয়ার্কে ছবি এবং ভিডিওর মতো ভিজ্যুয়ালের মাধ্যমে পণ্য বা পরিষেবার বিজ্ঞাপন প্রচার প্রচারণা করার প্রক্রিয়াকে বোঝায়। 

Display advertising টা বলতে সাধারণত আমরা রাস্তা ঘাটে যে সব প্রচারমূলুক বিলবোর্ড বা ব্যানার  দেখতে পাই তার ডিজিটাল রূপ। আর এইগুলো করা হয় গুগল অ্যাডওয়ার্ডস ব্যবহার করে ।

ডিসপ্লে অ্যাডভার্টাইজিং মূলত পেইড অ্যাডভার্টাইজিং-এর একটি ফর্ম। এটি অনলাইন মার্কেটিংয়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় ধরনের গুলোর মধ্যে একটি।  আপনার ব্র্যান্ডের প্রচারের জন্য  একটি ভিজ্যুয়াল-ভিত্তিক মাধ্যম, যেমনঃ পন্য প্রদর্শনের জন্য বিজ্ঞাপনগুলি ওয়েবসাইট, অ্যাপ এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে এটি।

DA আপনার বিজ্ঞাপনগুলি ব্যবহারকারীদের কাছে পরিবেশন করে। যারা আপনার পন্য বা সেবার সাথে মানানসই এবং এবং আপনার  ওয়েবসাইটগুলি পরিদর্শন করে ঔ সকল টার্গেট ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে।

 

 

ডিসপ্লে অ্যাডভার্টাইজিং(DA)
ডিসপ্লে অ্যাডভার্টাইজিং(DA)

 

ইমেইল মার্কেটিং (EM)

 

ফোর্বসের মতে, একজন ব্যক্তি গড়ে  দিনে ১৫ বার তাদের মেল চেক করেন, তবে সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে। ইমেল মার্কেটিং আপনার ব্যবসায় নতুন লিড তৈরি করার প্রাথমিক উৎস নাও হতে পারে, তবে এটি বেশির ভাগ সময়ে আপনার গ্রাহকের সাথে যোগাযোগের একটি ফর্ম হিসাবে ব্যবহৃত হয় ।

ইমেল মার্কেটিং মাধ্যমে আপনার কাছ থেকে পুনঃক্রয় করতে থাকা বিশ্বস্ত গ্রাহক তৈরি হতে পারে। যার ফলে আপনার সফল হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।  যারা আপনার পরিষেবা বা পণ্যগুলি পছন্দ করেছেন এবং আপনার ব্যবসার আপডেটগুলিতে সাথে সংযুক্ত হয়ে সদস্যপদ বেছে নিয়েছেন৷ 

যারা আপনার পরিষেবা বা পণ্যগুলি পছন্দ করেছেন এবং আপনার ব্যবসার আপডেটগুলিতে সাথে সংযুক্ত হয়ে সদস্যপদ বেছে নিয়েছেন৷ বেশিরভাগ ব্যবসাই তাদের পণ্য এবং পরিষেবা সম্পর্কে সাপ্তাহিক নিউজলেটার, প্রচারমূলক অফার এবং আপডেট পাঠাতে ইমেল মার্কেটিং ব্যবহার করে। 

 

ইমেইল মার্কেটিং (EM)
ইমেইল মার্কেটিং (EM)

 

মোবাইল মার্কেটিং (MM)

 

মোবাইল মার্কেটিং বলতে বুঝি একটি বিজ্ঞাপনী কার্যকলাপ যা মোবাইল ডিভাইসের মাধ্যমে পণ্য এবং পরিষেবার প্রচার করে। যেমন; ট্যাবলেট এবং স্মার্টফোন।  এটি একজন ব্যক্তির অবস্থানের উপর ভিত্তি করে মার্কেটিং বা পন্যের প্রচার পরিচালনা করার জন্য লোকেশন পরিষেবা সহ আধুনিক মোবাইল প্রযুক্তির বৈশিষ্ট্যগুলি ব্যবহার করে৷

এই মার্কেটিং হল এমন একটি উপায়, যেখানে প্রযুক্তি ব্যবহার করে পণ্য বা পরিষেবার ব্যক্তিগত প্রচার করা হয়। যারা ক্রমাগত একটি মোবাইল নেটওয়ার্কের সাথে সংযুক্ত থাকেন তাদের কাছে। 

মোবাইল মার্কেটিং-এর মধ্যে এসএমএস টেক্সট মেসেজিং, MMS মাল্টিমিডিয়া মেসেজিং, পুশ নোটিফিকেশন ব্যবহার করে ডাউনলোড করা অ্যাপ, ইন-অ্যাপ বা ইন-গেম মার্কেটিং, মোবাইল ওয়েবসাইট বা QR কোড স্ক্যান করার জন্য মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার করে প্রেরিত প্রচার অন্তর্ভুক্ত।

 

 

মোবাইল মার্কেটিং (MM)
মোবাইল মার্কেটিং (MM)

 

এফিলিয়েট মার্কেটিং (AM)

 

এফিলিয়েট মার্কেটিং (AM)  এমন একটি  মার্কেটিং ব্যবস্থা যার মাধ্যমে একজন অনলাইন খুচরা বিক্রেতা তার রেফারেল থেকে উৎপন্ন ট্রাফিক বা বিক্রয়ের জন্য একটি বহিরাগত ওয়েবসাইটে কমিশন প্রদান করে।

এই ধরনের মার্কেটিং মধ্যে আপনার ব্যবসার জন্য একজন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর জড়িত থাকেন ।  যিনি সম্ভাব্য ভোক্তাদের সাথে যুক্ত হতে এবং কমিশন বা অর্থ প্রদানের জন্য আপনার ব্যবসার পরিষেবা এবং পণ্যগুলির সুপারিশ করতে সাহায্য করেন।

এমনকি আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং জগতে প্রভাবশালী এবং সফল ব্যক্তিদের কাছে পৌঁছাতে পারেন এবং বিপুল সংখ্যক ভোক্তাদের কাছে আপনার ব্যবসার প্রচার করতে তাদের অর্থ প্রদান করতে পারেন। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর  প্রতিটি অংশ কীভাবে আপনার ব্যবসায় অবদান রাখতে পারে তা আরও ভালভাবে বোঝার ফলে আপনি যে ডিজিটাল মার্কেটিং কাঠামো তৈরি করতে এবং সম্পাদন করতে চান তা নির্ধারণ করতে সহায়তা করবে Affiliate Marketing।

 

 

এফিলিয়েট মার্কেটিং (AM)
এফিলিয়েট মার্কেটিং (AM)

 

পরিশেষে 

 

বর্তমান সময় ডিজিটাল মার্কেটিং অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠেছে আপনার পণ্য-সেবা গুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য। তাই আপনি যদি একজন ভাল ডিজিটাল মার্কেটিয়ার হতে চান আপনার জন্য অবশ্যই  এর কৌশল গুলো ভালো ভাবে জেনে  রাখা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

আমাদের এই ব্লগ পোস্টটি যারা মনোযোগ সহকারে পড়েছেন তাদের জন্য অবশ্য ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার ততটা কঠিন না। এখানে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে সুন্দরভাবে ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি যে আপনাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটিয়ার হতে।

3 thoughts on “ডিজিটাল মার্কেটিং কি?। কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন?

  1. ধন্যবাদ এত সুন্দর করে উপস্থাপন করার জন্য, আশা করছি ভবিষ্যতে আপনার কাছ থেকে আরও সুন্দর সুন্দর ব্লগ আমরা উপহার পাবো

  2. আর্টিকেল খুব ভাল লেখা হয়েছে। আমি আপনাদের ব্লগের নতুন পাঠক। আশা করি ভবিষ্যতেও আরও সুন্দর ও তথ্য পূর্ণ পোস্ট পাব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *