ইন্টারনেটের মালিক কে?

ইন্টারনেটের মালিক কে?

আসসালামুয়ালাইকুম  Friends IT Point এর পক্ষ থেকে আপনাকে জানাই স্বাগতম। আজকে আমরা ইন্টারনেটের মালিক কে?, টিআর ওয়ান, টিআর টু, টিআর থ্রী কি সেই সম্পর্কে জানার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

 

প্রাসঙ্গিক পোস্ট নম্বরঃ৩

 

ইন্টারনেটের মালিক কে? এই প্রশ্নের দুটি উত্তর আছে:

১. কেউ না আবার
২. অনেক মানুষ

 

ইন্টারনেট কীভাবে কাজ করে?

ইন্টারনেট কোনও একক জিনিস নয় যা পুরোপুরি কোন ব্যাক্তি বা সংস্থার মালিকানাধীন। এটি বিভিন্ন সংস্থা এবং সংস্থার মালিকানাধীন আন্তঃসংযুক্ত নেটওয়ার্কগুলির একটি বিশাল সিরিজ।

আপনি যে মোবাইল ফোন ব্যাবহার করেন তার নেটওয়ার্ক যে টাওয়ার থেকে আসে এবং ঐ জায়গা থেকে আপনি যদি কোন ওয়েবসাইট ভিজিট করেন তবে আপনাদের জেনে রাখা উচিত যে সেখানকার সার্ভার পর্যন্ত অপটিক্যাল ফাইভার ক্যাবল বিছিয়ে দেওয়া থাকে।

 

ইন্টারনেট আমাদের কাছে কীভাবে পৌঁছায়?

ইন্টারনেট আমাদের কাছে পৌঁছায় মূলত তিনটি ভিন্ন ভিন্ন স্তরে। এই তিনটি ভিন্ন স্তরকে বলা হয় টিআর ওয়ান, টিআর টু এবং টিআর থ্রি। চলুন এগুলো সম্পর্কে জানি।

টিআর ওয়ান : নিজেদের অর্থায়নে সমুদ্রের তলদেশ দিয়ে এক দেশ থেকে আরেক দেশে জালের মত অপটিক্যাল ফাইবার বিছিয়ে রেখেছে টিআর ওয়ানকোম্পানি। এভাবেই একটি দেশ বাকি অন্য সব দেশগুলোর সঙ্গে ক্যাবলের সাহায্যে যুক্ত হয়ে যায়। বাংলাদেশে এমন একটি টিআর ওয়ান কোম্পানি হলো বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড।

টিআর টু : আমরা যদি আমাদের বাংলাদেশের কথা চিন্তা করি তাহলেই বিষয়টা সহজে বুঝা যাবে। আমাদের দেশে বিভিন্ন অপারেটর রয়েছে।  যেমনঃ গ্রামীণফোন, রবি, বাংলালিঙ্ক, টেলিটক, এয়ারটেইল ইত্যাদি। এসব অপারেটররা ল্যান্ডিং পয়েন্ট থেকে  পরবর্তী ধাপে তার বা ক্যাবলের মাধ্যমে ইন্টারনেট সংযোগ পুরো বাংলাদেশে ছড়িয়ে দেয়। এই সব কোম্পানি কে বলে টিআর টু কোম্পানি।

টিআর থ্রী : এছাড়াও লোকাল পর্যায়ে বিভিন্ন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার রয়েছে যারা মূলত টিআর থ্রি কোম্পানি। যারা ব্রডব্যান্ড কানেকশন দেয় তারাই টিআর থ্রী কোম্পানি।

 

আমাদের শেষ কথা

ইন্টারনেটের কোন মালিক নেই। আপনি নিজেও ইন্টারনেটের মালিক হতে পারেন। মনে করুন আপনার বাসায় ৩-৫ টি কম্পিউটার আছে। কিন্তু কম্পিউটার গুলো একটা আর একটার সাথে কানেকশন নাই। এখন আপনি যদি একটা ফাইবার অপটিক ক্যাবল দিয়ে সবগুলো কম্পিউটারকে একসাথে কানেকশন বা সংযোগ ইস্থাপন করতে পারেন তাহলেই হয়ে যাবে আপনার নিজের বানানো একটা ইন্টারনেট! যেখানে আপনি আপনার নিজের ইচ্ছামতো ডাটা শেয়ার করতে পারবেন।

 

পরিশেষে বলতে চাই, আমাদের এই আর্টিকেল টি যদি আপনার সামান্যতম উপকারে আসে তবে আমাদেরকে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.